Pages Menu
TwitterRssFacebook
Categories Menu

Posted by on Mar 23, 2015 in গর্ভবতী মা |

গর্ভবতী মা এবং পানিভাঙ্গা

গর্ভবতী মা এবং পানিভাঙ্গা

পানিভাঙ্গা কি?

পানিভাঙ্গা হলো এমন একটি সময় যখন শরীর জানান দেয় যে আপনার গর্ভস্থ সন্তান এখন পৃথিবীতে আসার জন্য তৈরি। এর কোন নির্দিষ্ট দিনক্ষন নেই তবে সাধারণত মায়ের ৪০ সপ্তাহের মধ্যে পানিভাঙ্গা হতে পারে।

মায়ের গর্ভে থাকাকালীন যে সমস্ত অ্যামনিটিক ফ্লুইড সমৃদ্ধ মেমব্রেন শিশুকে গর্ভে সুরক্ষা প্রদান করে তা ছিঁড়ে যায় এবং যোনীপথ দিয়ে বের হতে দেখা যায়। এই অবস্থাকেই মূলত পানিভাঙ্গা বলা হয়।

কি করা উচিত?

সন্তান জন্মদানের প্রক্রিয়ার একটি স্বাভাবিক অংশ এটি। তাই এই নিয়ে খুব বেশি ভয়ের কিছু নেই। নিজেকে মানসিকভাবে সন্তান জন্মদানের জন্য প্রস্তুত করুন এবং তাৎক্ষনিকভাবে এই অবস্থা সম্পর্কে কাছের মানুষ, আপনার চিকিৎসক সবাইকে অবহিত করুন।

যদি মা ও শিশু সুস্থ থাকেন এবং কোন ধরণের সমস্যা না থাকে তবে সাধারণত চিকিৎসক স্বাভাবিক উপায়ে প্রসবের জন্য অপেক্ষা করেন, এক্ষেত্রে মায়ের কাপড় যাতে নষ্ট না হয়ে সেক্ষেত্রে ম্যাক্সি প্যাড ব্যবহার করা উচিৎ। এতে করে যে ফ্লুইড বের হবে তার প্রকৃত রঙ বোঝা যাবে। কিন্তু কোন সমস্যা দেখা দিলে সাথে সাথেই সন্তান জন্মদানের প্রক্রিয়া শুরু করা হয়।

ব্যতিক্রমী কিছু বিষয়ঃ

বেশ কিছু বিষয় রয়েছে যেসব দেখা দিলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামসশ নিয়ে সাথে সাথে ব্যবস্থা নিতে হবে। এমন কিছু বিষয়  হলোঃ

১। মায়ের বের হওয়া ফ্লুইডের রঙ সাধারণত হলুদাভ হয়ে থাকে, তবে ঈষৎ লালচেও থাকতে পারে। কিন্তু যদি ফ্লুইডের রঙ সবুজ কিংবা বাদামী হতে দেখা যায় তবে সাথে সাথেই চিকিৎসককে জানিয়ে ব্যবস্থা নিতে হবে।

২। যদি মায়ের প্রেগনেন্সির বয়স ৩৭ সপ্তাহ কিংবা তার কম হয়।

৩, মা যদি যোনীপথে আম্বিলিক্যাল কর্ড দেখতে পান, এই বিরল অবস্থাকে কর্ড প্রোলাপস বলা হয়।