Pages Menu
TwitterRssFacebook
Categories Menu

Posted by on Jul 27, 2014 in গর্ভবতী মা |

গর্ভবতীকে যে ছয়টি ব্যাপারে চিকিৎসকেরা উৎসাহিত করে থাকেন

গর্ভবতীকে যে ছয়টি ব্যাপারে চিকিৎসকেরা উৎসাহিত করে থাকেন

গর্ভবতী মায়ের বিভিন্ন প্রয়োজনেই চিকিৎসকের পরামর্শ নেবার প্রয়োজন হয়। আর গর্ভধারণের পরপরই শিশু ও মা দু’জনের সুস্থতার জন্য একজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের অধীনে থাকাটা অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। সাধারনভাবে গর্ভাবস্থায় চিকিৎসকেরা মা’দের কিছু ব্যাপারে উৎসাহিত করে থাকেন যা মায়ের ও শিশুর স্বাস্থ্যের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ। এমন ছয়টি ব্যাপার সম্পর্কে আসুন আজ জেনে নেয়া যাক।

১। নিজের ওজনের ব্যাপারে সচেতন হতে হবে। নিজের শরীর ও স্বাস্থ্যের উপর নির্ভর করে একজন মায়ের ওজন গর্ভাবস্থায় কতটুকু বৃদ্ধি পেতে পারে। সাধারনত গর্ভবতী মায়ের ওজন শরীর ভেদে ২৫ থেকে ৩৫ পাউন্ড পর্যন্ত বৃদ্ধি পেতে পারে।

২।  অনেক গর্ভবতী মা’কেই ব্যায়াম এর ব্যাপারে খুবই উদাসীন দেখা যায়। কিন্তু চিকিৎসকেরা বলেন গর্ভাবস্থায় একজন মায়ের দিনে অন্তত ৩০ মিনিট ব্যায়াম করা উচিৎ। এটি শরীরকে সবল রাখতে এবং খুব বেশি ওজন ধারন করা থেকে বাঁচায়।

৩। আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার হলো প্রতিদিন প্রচুর পরিমাণে পানি পান করা। একজন গর্ভবতী মায়ের প্রতিদিন আট থেকে দশ গ্লাস পানি পান করা আবশ্যক। তাই মা যেখানেই যাক, যেখানেই থাকুক নিশ্চিত করতে হবে যে তাঁর সঙ্গে পর্যাপ্ত খাবার পানি রয়েছে।

৪। কোন খাবারই একবারে না খেয়ে একটু পরপর করে খেয়ে নিতে হবে। এতে পাকস্থলী কখনোই একেবারে খালি থাকবে না আর অ্যাসিডিটি ও ডায়বেটিসের সমস্যা থেকেও অনেকাংশে রেহাই মিলবে।

৫। নিজের খাবার তালিকা গুছিয়ে নিতে হবে স্বাস্থ্যকর সব খাবারের সাথে। ফলমূল, প্রোটিন ও ফলিক এসিড সমৃদ্ধ খাবারে নিজের খাবারের তালিকা গুছিয়ে নিতে হবে।

৬। এমন হতেই পারে যে খাবারগুলো মায়ের পছন্দ তা খুব একটা স্বাস্থ্যকর নয়। এতে করে অনেকেই দুশ্চিন্তায় পরে যান যে কি করবেন। এসব ব্যাপারে নিজের মতো করে স্বাস্থ্যকর কোন বিকল্প খাবার খুঁজে নিতে হবে।