Pages Menu
TwitterRssFacebook
Categories Menu

Posted by on Jul 9, 2014 in ছোট্টমনি, জেনে রাখা ভাল, স্কুলের পথে, হাটি হাটি পা |

শিশুর ডায়রিয়াঃ কেন হয়? কি করে বন্ধ করবেন?

শিশুর ডায়রিয়াঃ কেন হয়? কি করে বন্ধ করবেন?

ছোট শিশুরা যেসব রোগে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হয় তার মধ্যে অন্যতম হলো ডায়রিয়া। প্রায়ই বিভিন্ন কারণে শিশুরা ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হতে পারে। কি করে শিশুর এসব সমস্যা সামলাবেন আর কি কারণেই বা আপনার সন্তান বারবার ডায়রিয়াতে আক্রান্ত হয় সে ব্যপারে আদ্যোপান্ত জেনে নিন আজ।

যেসব কারণে শিশু ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ঃ

১। ভাইরাল ইনফেকশন যেমন বমি, জ্বর বা শরীরের ব্যাথা।

২। শরীরে ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণ।

৩। এন্টিবায়োটিকেরপার্শ্বপ্রতিক্রিয়া।

৪। খুব বেশি ফলের রস কিংবা জুস খাওয়ানোর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া।

৫। শিশুর কোন বিশেষ খাবারে এলার্জি থাকলে।

৬। ফুড পয়জনিং হলে।

কি করে শিশুকে ডায়রিয়া থেকে মুক্ত করবেন?

১। শিশুকে বেশি বেশি করে তরল খাবার এবং পানি খাওয়াবেন।

২। চিনিযুক্ত বাজারের কোমল পানীয় যতটা সম্ভব সন্তানের কাছ থেকে দূরে রাখতে চেষ্টা করুন। এতে শিশুর ডায়রিয়া আরও খারাপ দিকে যেতে পারে।

৩। শিশুকে স্বাভাবিক সব খাবার খেতে দিন। শিশু খেতে না চাইলে জোর করবেন না। ধীরে ধীরে ধৈর্য নিয়ে খাওয়াতে পারেন।

৪।  শিশুকে যতটা সম্ভব আরাম দিতে চেষ্টা করুন। সন্তানের বারবার টয়লেটে যাওয়া তাকে বিরক্ত করে তুলতে পারে। তাই তাকে বারবার খাওয়ার কথা বলে বিরক্ত না করে তার মতো থাকতে দিন।

৫। শিশুকে না জেনে শুনে বড়দের ডায়রিয়ার ওষুধ খাওয়াবেন না। এতে হিতে বিপরীত হবার সম্ভাবনাই বেশি।

কখন ডাক্তারের কাছে যাওয়া প্রয়োজন?

শিশুর অবস্থা বেশি খারাপের দিকে চলে গেলে বাড়িতে বসে না থেকে ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়াটাই শ্রেয়। কিন্তু কখন চিকিৎসকের পরামর্শ নেবেন তা অনেকেই বুঝতে পারেননা। আপনার সন্তানের নিন্মোক্ত লক্ষণ গুলো দেখা গেলে দেরী না করে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

  • বারবার বমি করা।
  • পানিশূন্যতার লক্ষণ দেখা যাওয়া যেমন শুকনো মুখ, অনিয়মিত মূত্রত্যাগ ইত্যাদি।
  • শিশুর পায়খানায় রক্ত দেখতে পাওয়া, কিংবা কালো বর্ণের পায়খানা হওয়া।
  • খুব বেশি জ্বর থাকা(১০৩ ডিগ্রীর উপর)।

কি করে ডায়রিয়া প্রতিরোধ করবেন?

নিয়মিত হাত ধোয়া আপনার সন্তানকে ডায়রিয়া থেকে রক্ষা করার মূল অস্ত্র। কারণ হাত থেকেই শিশুর মুখে জীবাণু প্রবেশ করতে পারে। এছাড়া খেলনা ও ঘরের অন্যান্য জিনিসপত্র থেকেও শিশুর শরীরে ডায়রিয়ার জীবাণু প্রবেশ করতে পারে। তাই ময়লা কোন কিছু ধরার পরপর শিশুর হাত সাবান দিয়ে ধুইয়ে দিন এবং ছোটবেলা থেকেই পায়খানা থেকে আসার পর, খাওয়ার আগে ও পরে শিশুর এই হাত ধোয়ার অভ্যাস তৈরি করুন।