Pages Menu
TwitterRssFacebook
Categories Menu

Posted by on Dec 4, 2013 in ছোট্টমনি |

শিশুর গোসলে সতর্কতা

শিশুর গোসলে সতর্কতা

শিশুর সুস্বাস্থ্যের জন্য পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার বিকল্প নেই আর পরিছন্নতার জন্য গোসল অপরিহার্য। তবে বড়দের থেকে শিশুদের গোসলের পদ্ধতি কিছুটা আলাদা। শিশুদের শরীর সাধারণত আর্দ্র এবং মসৃণ হয় যা ব্যাকটেরিয়া এবং পরিবেশগত অন্যান্য ক্ষতিকর উপাদান থেকে তাদের শরীরকে রক্ষা করে। তাই ডায়াপার ব্যতীত শরীরের অন্যান্য স্থান খুব বেশি পরিষ্কার করার প্রয়োজন পড়ে না। তদুপরি, শিশুরা ঠাণ্ডার প্রতি সংবেদনশীল হওয়ায় অধিক পানির সংস্পর্শে গেলে ঠাণ্ডাজনিত রোগ যেমন নিউমোনিয়ায় ভোগার সম্ভাবনা থাকে। তাই সপ্তাহে দুইবার বা তিনবার গোসলই শিশুদের জন্য যথেষ্ট। একেবারে ছোট্ট শিশুদের ক্ষেত্রে স্পঞ্জ গোসলের অধিক কিছু দরকার নেই। স্পঞ্জ গোসল বলতে বোঝায় কোন পরিষ্কার তোয়ালে বা কাপড় পানিতে সামান্য ভিজিয়ে শিশুর শরীর মুছে দেওয়া। তবে শিশু কিছুটা বড় হলে বাথটাবে বা সিঙ্কে গোসল করানো যেতে পারে।

শিশুর গোসলের সময় লোশন এবং পাউডার ব্যবহার নিয়ে মতভেদ রয়েছে। কিছু কিছু পণ্য হয়তো শিশুর ত্বক পরিষ্কারে গোসলের সময় সহায়তা করে, তবে অনেকগুলোই নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। আপনার শিশুর ত্বক যদি ঐ পণ্যের প্রতি সংবেদনশীল বা এলার্জিক হয় তাহলে শিশুর ত্বক মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। বিশেষ করে সুগন্ধযুক্ত সাবান এবং লোশনে শিশুর ত্বকের জন্য ক্ষতিকারক রাসায়নিক থাকে। তাই সাবান, পাউডার এবং লোশন যদি ব্যবহার করতেই হয়, তাহলে গন্ধহীন ব্যবহার করাই ভালো। বিশেষ  করে পাউডার ব্যবহারের ক্ষেত্রে অধিক সচেতন হতে হবে যেহেতু তা সহজে শিশুর নিঃশ্বাসের সাথে ভেতরে চলে যেতে পারে। সাফ্‌লোয়ারের তেল শিশুর ত্বকের জন্য স্বাস্থ্যকর বলে পরিচিত।

শিশুর গোসলের পূর্বেই প্রয়োজনীয় জিনিসগুলো হাতের কাছে রাখুন যেমন ওয়াশক্লথ, চোখের চারপাশ পরিষ্কারের জন্য তুলো, সাবান, চোখে জ্বালা করে না এমন শ্যাম্পু, তোয়ালে এবং উষ্ণ পোশাক। শিশুকে যে ঘরে গোসল করাবেন তার তাপমাত্রা যেন স্বাভাবিক হয় এবং আর্দ্রতা স্বাভাবিক থাকে।

কোন অবস্থাতেই শিশুকে পানির কাছে রেখে সরে যাবেন না। কারণ বাথটাব বা সিঙ্কের গোসলের সময় অসতর্কতাবশত শিশু পানি গিলে ফেলতে পারে। শিশুকে পানি বেশি ঘাটাঘাটি করতে দেবেন না, এতে ঠাণ্ডা লেগে যেতে পারে। শিশুর গোসলের ক্ষেত্রে সবসময়ই কুসুমগরম পানি উত্তম। কিছুটা উষ্ণ পানি শিশুর ঠাণ্ডা লেগে যাওয়া প্রতিহত করে এবং শিশুকে আরামদায়ক অনুভূতি দেয়।