Pages Menu
TwitterRssFacebook
Categories Menu

Posted by on Apr 1, 2015 in জেনে রাখা ভাল |

কর্মজীবি মাঃ শিশু, সংসার, অফিস সামলানোর কিছু টিপস

কর্মজীবি মাঃ শিশু, সংসার, অফিস সামলানোর কিছু টিপস

মেয়েদের জন্মগত ভাবেই একসাথে বহু কাজে পারদর্শি হতেই হয়। সংসার সামলানো, রান্না-বান্না করা, সামাজিক সম্পর্ক বজায় রাখা সবকিছুই নিপুনভাবে সামলানোর দায়িত্ব বেশিরভাগ অংশেই এসে পরে সংসারের নারীর উপর। আর সেই নারী যখন শুধু ঘরে নয়, বাইরেও নিজের কোন কর্মজীবনে ব্যস্ত থাকেন তবে তো কথাই নেই। দুটি হাত, একটি মস্তিষ্ক আর রাজ্যের সব কাজ! কি করে সামলাবেন তিনি? আর যদি এমন কর্মজীবি মায়েরা হন ছোট সন্তানের মা, তবে তো আরো কষ্ট। শিশুকে বড় করে তোলার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া, শিশুর সব কাজ সামলানো, সংসার সামলানো, আফিস সামলানো সবকিছু ব্যালেন্স করে নিতে আজ জানিয়ে দিচ্ছি কিছু গুরুত্বপূর্ণ কার্যকরী টিপস।

  • সর্বপ্রথম ও সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কথা, আপনার সংসারে সময় দিতে সমস্যা হচ্ছে কিংবা অনেক কমপ্রোমাইজ করা লাগছে এ ব্যাপারে নিজেকে অপরাধী ভাববেন না। এতে সংসার ও কাজের জায়গা দুটোতেই আগ্রহ হারিয়ে যেতে পারে। নিজেকে বলুন যা সবকিছু ঠিকমতো করতে পারবেন আপনি।
  • যদি পরিবাররে সন্তানকে দেখার কেউই না থাকে তবে আপনার কাজের জায়গার কাছে পিঠে ভালো কোন চাইল্ডকেয়ার সেন্টার খুঁজে বের করুন। (হাঁটিহাঁটিপা.কম এর পূর্বের একটি লেখায় এ সম্পর্কে তথ্য ও ফোন নাম্বার দেওয়া আছে)। শিশুকে কাছের কোন চাইল্ডকেয়ারে রাখলে কাজের ফাঁকে ফুসরত মিললেই সন্তানের সাথে দেখা করে আসতে পারেন।
  • কর্মজীবি বলে সকালটা অন্যদের তুলনায় আপনাকে একটু আগেভাগেই শুরু করতে হবে। সকালের সময়টা রান্না-বান্না, সারাদিনের পরিকল্পনা ও পরিবারের সকলের সাথে একসাথে সময় কাটানোর কাজে ব্যবহার করুন। সুষ্ঠূ পরিকল্পনা ও পরিবারের সাথে কাটানো সময় আপনাকে সারাদিনের কাজের জন্য মানসিক রসদ যোগাবে।
  • নতুন একটি বিষয়ের সাথে আপনাদের পরিচয় করিয়ে দেই। তা হও ফ্যামিলি ক্যালেন্ডার। পরিবারের সবাই মিলে একসাথে বসে পুরো মাসের একটি দিনপঞ্জিকা তৈরী করুন। সবাইকে এমনকি আপনার ছোট সন্তানকেও(যদি বয়স দুই এর বেশি হয়) কাজ ভাগ করে দিন। কোন স্কোন সপ্তাহের পুরো পরিবারের কি কি প্রোগ্রাম আছে তা লিস্ট করে নিন।
  • পরিবারের সাথে সাথে আপনার বিভিন্ন সমস্যা সম্পর্কে আপনার উর্দ্বতন কর্মকর্তার সাথেও ভালোভাবে বোঝাপড়া করে নিন।
  • যতটা সময় পরিবারের সবাই একসাথে থাকেন ততক্ষন নিজেদেরকে আলাদা না রেখে একসাথে থাকুন। আপনার সন্তান সারাদিন কি কি করলো, কি খেলো সব তার কাছ থেকে জেনে নিন ও বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে তুলুন যাতে সে অন্য সময় মায়ের অভাব কম বোধ করে।
  • জীবনকে শৃঙ্খলাবদ্ধ করে গড়ে তুলুন। প্রতিটি ছোট ছোট কাজের জন্য সময় আগে থেকে ভাগ করে নিন। অযথা সময় নষ্ট করবেন না।
  • সবকিছু সামলাতে যেয়ে সঙ্গীকে ভুলে যাবেননা যেনো! সেও আপনার কাছ থেকে সাহায্য, সহযোগীতা ও সময় কাটাতে চায়। তাই স্বামীর জন্য কিছুটা একান্ত সময় নিজের তালিকায় রাখুন। এতে পারস্পরিক বোঝাপড়া ও সম্পর্ক আরো অনেক দৃঢ় হবে। আপনার কাজও সহজ হবে।