Pages Menu
TwitterRssFacebook
Categories Menu

Posted by on Jan 17, 2014 in ছোট্টমনি, স্কুলের পথে, হাটি হাটি পা |

বিভিন্ন বয়সে শিশুর খাদ্য

বিভিন্ন বয়সে শিশুর খাদ্য

সঠিক ও পর্যাপ্ত পরিমানে পুষ্টিকর খাবার প্রতিটি শিশুর জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ভূমিষ্ঠ হবার পর থেকেই শিশুর খাদ্য প্রয়োজন। সঠিক ও পর্যাপ্ত পুষ্টিকর খাবার শিশুর দেহের সমন্বিত ক্রমঃবৃদ্ধি ও ক্রমঃবিকাশের মাধ্যমে পরবর্তী কর্মময় জীবনের ভিত্তি গড়ে তোলে। অতএব শিশুর খাদ্য ও পুষ্টি সম্পর্কে মা-বাবার সম্যক অবগতি অত্যাবশ্যকীয়।

বিভিন্ন বয়সে শিশুর দেহের বৃদ্ধির সাথে সাথে খাদ্যের ধরনও ভিন্ন ভিন্ন হয়। আসুন দেখে নেই বয়স ভেদে শিশুর খাদ্য তালিকা কেমন হতে পারে।

 

জন্ম থেকে ৬ মাসঃ

  • কেবলমাত্র মায়ের বুকের দুধ (যতবার খেতে চাইবে ততবার)।
  • অন্য কোন খাদ্য বা পানীয় খাওয়ানো নিষেধ।

 

৬ মাস থেকে ১২ মাসঃ

  • মায়ের বুকের দুধ (যতবার খেতে চাইবে ততবার)।
  • পরিপূরক খাবারঃ
    • বুকের দুধ খাওয়ার পর পর্যাপ্ত পরিমান ডাল-ভাত, খিচুড়ি,হালুয়া, ডিম, মাছ, মুরগীর মাংস, সবুজ শাক, হলুদ ফল; যেমনঃ কলা, পেঁপে, পাকা আম ও কাঁঠাল।
    • বুকের দুধ খেলে উপরোক্ত পরিপূরক খাবার দৈনিক ৩ বার খাওয়ানো উচিৎ।
    • বুকের দুধ না খেলে উপরোক্ত পরিপূরক খাবার দৈনিক ৫ বার খাওয়ানো উচিৎ।

 

১২ মাস থেকে ২ বছরঃ

  • মায়ের বুকের দুধ (যতবার খেতে চাইবে ততবার)।
  • বুকের দুধ খাওয়ানোর পূর্বে পর্যাপ্ত পরিমান ডাল-ভাত, খিচুড়ি,হালুয়া, ডিম, মাছ, মুরগীর মাংস, সবুজ শাক, হলুদ ফল; যেমনঃ কলা, পেঁপে, পাকা আম ও কাঁঠাল অথবা ঘরোয়া/ পারিবারিক খাবার দৈনিক ৫ বার খেতে দেয়া উচিৎ।

 

২ বছর এবং তদোর্দ্ধঃ

  • ঘরোয়া/ পারিবারিক খাবার দৈনিক অন্তত ৩ বার খেতে দেয়া উচিৎ।
  • এর অতিরিক্ত আরো ২/৩ বার পুষ্টিকর খাবার খাওয়াতে হবে যেমন, তেলে ভাজা ভাত/ পোলাও, রুটি, বিস্কুট, কলা, পেঁপে, পাকা আম ও কাঁঠাল।