Pages Menu
TwitterRssFacebook
Categories Menu

Posted by on Jun 3, 2014 in গর্ভধারণ, জেনে রাখা ভাল |

গর্ভাবস্থার সাতটি অস্বস্তির সমাধান

গর্ভাবস্থার সাতটি অস্বস্তির সমাধান

গর্ভাবস্থার সময়টুকু নারী জীবনের সবচেয়ে আরাধ্য সময়ের একটি। নারী জীবনের পূর্ণতা প্রাপ্তির এ সময়ে একজন নারীর জীবনযাত্রা, শরীরের গড়ন সহ সবকিছুতেই আসে পরিবর্তন, আর এই পরিবর্তনের সাথে খাপ খাওয়াতে যেয়ে মা’কে অনেক ধরণের অস্বস্তিতে পড়তে হয়, এই অস্বস্তি শুধু শারীরিক গড়ন নয়, এই অস্বস্তি হয় খাবার দাবার থেকে শুরু করে রাতে ঘুমানো পর্যন্ত প্রায় প্রতিটি বিষয় নিয়েই। তাই এমন সাতটি অস্বস্তির সমাধান আজ জেনে নিন যা কিছুটা হলেও আপনাকে আরাম দিতে সক্ষম।

    • গর্ভাবস্থার শুরু থেকেই মায়ের খাবারের রুচিতে অনেকটাই পরিবর্তন আসে। অনেকেই আবার সকালবেলা কিছুই খেতে পারেন না। এক্ষেত্রে,তরমুজ আপনাকে দিতে পারে কিছুটা ভালো স্বাদের সন্ধান। গরমের সময় তো বটেই এখন বছরের বেশ খানিকটা সময় জুড়েই পাওয়া যায় এই ফল। হালকা লবণ তরমুজের উপর ছিটিয়ে দিয়ে খেলে গর্ভবতী মা ভালো স্বাদের সন্ধান পাবেন।
    • মায়ের ঘুমের সময় কিংবা শুয়ে থাকার সময় মা কিছুতেই স্বস্তি বোধ করেননা। তলপেটের দিকে বাড়তি নজর রাখতে হয় বলে শুয়েও আরাম পায় না কিছুতেই। চাদর কিংবা হালকা কাঁথা দিয়ে একটু জায়গা নিয়ে বালিশের মতো বানিয়ে নিতে পারেন। শোয়ার সময় কিছুটা আরাম দিতে সক্ষম এটি।
    • আগেও অনেকবার বলা হলেও আবারও আসছে প্রতিদিন কিছুটা সময় হাঁটাহাঁটির প্রসঙ্গটি। সবসময় শুয়ে বসে থাকলে এটি গর্ভবতী মায়ের শরীরে বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারে। একটু হাঁটাচলা করা শরীরে নতুন করে শক্তি সঞ্চয় করতে পারে।
    • হাসি পৃথিবীর সবচেয়ে বড় ঔষধ। গর্ভবতী মা’কে সবসময় হাসি ঠাট্টায় প্রাণোচ্ছল রাখা পরিবারের সকল সদস্যদের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব। সবসময় মায়ের পজিটিভ চিন্তাভাবনা ও হাসিখুশি মনে থাকা উচিৎ।
    • দইয়ের স্বাদ মায়ের মুখে রুচি ঠিক রাখতে সহায়তা করে। একজন গর্ভবতীর উচিৎ প্রতিদিন কিছুটা পরিমাণে দই খাওয়া যা তার শরীরে পুষ্টি প্রদানের পাশাপাশি রুচিবর্ধক হিসেবেও ভালো কাজ করে।
    • স্বাদ ও রুচির পরিবর্তনের ফলে এবং বিভিন্ন হরমোনের পরিবর্তনের মাধ্যমে মায়ের মুখে পানির স্বাদেও পরিবর্তন আসতে পারে। অনেকেই প্রয়োজনীয় পানিও এ কারণে পান করতে পারেননা। তাই পানির সাথে হালকা লেবু মিশিয়ে খেলে মায়ের এ সমস্যা দূর হবে আর মা’কে আরামও দেবে।